Thursday, February 20, 2020
Login
Username
Password
  সদস্য না হলে... Registration করুন
র ফি কু ল ই স লা ম                 জা হা না রা খা তু ন                 হা সি না আ ক্তা র                  স্ব প ন চ ক্র ব র্তী                  ফা তে মা ই স লা ম রা হা কা জী                  ডাঃ গো লা ম র হ মা ন ব্রা ই ট                 শি হা ব ই ক বা ল                 শি বা নী বা ড়ৈ                  আ লা উ দ্দি ন হো সে ন                  সে লি না আ খ তা র                


বন্ধু ফোরাম


শি রি ন আ ক্তা র
সুখ নামে কাঁটা ( ৩য় পর্ব) :
সময় : 2020-02-14 11:01:52

এ্যাই! তুমি এখানে? 
আমি সারা পার্ক তোমাকে খুঁজেছি। 
তা কি ব্যাপার বলোত? 
জরুরি তলব মহারানীর! 
একটি মেয়ে পার্কের এক কোনায় একটি ফুল গাছের আড়ালে বসে এক মনে নিচু হয়ে ঘাসের ডগা ছিড়ছে। 
ছেলেটির কথায় কোন জবাব দেয়না। 
তোমার কি হয়েছে বলবেতো? 
কিছু না বললে,আমি বুঝব কি করে? 
এবার মেয়েটি তার আয়ত ভেজা আঁখি তুলে তাকায়। 
দু' চোখে তার নোনা জল।
চঞ্চল পদে ছেলেটা মেয়েটার কাছে যায়। 
তার কাঁধে হাত দিয়ে মুখটা তার দিকে ফেরায়। 
ব্যাকুল হয়ে জিজ্ঞেস করে কি? কি হয়েছে রানী? 
ছেলেটার কাঁধে মাথা রেখে ফুঁপিয়ে কাঁদে মেয়েটা। 
আমাকে দুরে বহু দুরে কোথাও নিয়ে চল সোনা। 
ছেলেটা অসহিষ্ণু হয়ে ওঠে। 
আহ!
বলবেতো ঘটনা কি? 
আগামী শুক্রবার দিন আমার বিয়ে ঠিক হয়েছে। 
পাত্র বি,টেক প্রকৌশলী। 
তুমি যদি আমাকে সত্যি ই ভালবেসে থাকো, তাহলে তুমি আমাকে আজই নিয়ে যাবে। 
আমরা অনেক দুরে কোথাও চলে যাব। 
এই শহর,এই পরিবেশ থেকে দুরে অন্য কোথাও। 
চুপ করে ভাবে ছেলেটা। 
মাস্টার্স পাশ করে বেকার বসে আছে। 
কটা টিউশনি ভরসা। 
এমতাবস্থায় সে কি করে বিয়ে করবে? 
তার মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়ে। 
প্লিজ সোনা! 
তোমার পায়ে পড়ি। আমাকে বাঁচতে দাও। 
তোমাকে ছাড়া আমি বাঁচতে পারবনা। 
তোমাকে ছাড়া আর কাউকে স্বামী হিসাবে মানতে পারবনা। 
কেঁদোনা লক্ষিটি। 
আমিও তোমাকে ভীষন ভালোবাসি। 
তোমাকে ছাড়া জীবন অর্থহীন। 
আমি তোমাকে নিয়ে যাব। 
সত্যি! 
মেয়েটি নিশ্চিত এক আশ্বাসে হেসে ওঠে। 
ছেলেটির চোখে চোখ রাখে।
পরস্পর পরস্পরের দিকে যুগ - যুগের এক আকুল তৃষ্ণা নিয়ে তাকিয়ে থাকে। 
তারপরের দৃশ্য নোয়াখালী শহরের। 
এক বন্ধুর বাসায় প্রেমিকাকে বৌ বানিয়ে এনে তুলে ছেলেটা। 
বাবার বাড়ি ছাড়ার কালে তার বিয়ের জন্য বানিয়ে রাখা ভরি আটেক গয়না, নগদ পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে এসেছে মেয়েটি। তার উপর নির্ভর করে আর 
বন্ধুদের সহযোগিতায় বেশ ক' মাস কেটে গেল। 
হন্যে হয়ে ছেলেটি চাকরি খুঁজে চলছে। 
ভাগ্য একটু মুখ ফিরে চাইল। 
একটা সরকারি ব্যংকে চাকরি হয়ে গেল। 
সুন্দর নির্ঝঞ্ঝাট স্বামী - স্ত্রীর ছোট্ট সংসার। 
ইতিমধ্যে মেয়ে টি নিজের সংসারকে তার নিজের মনের মাধুরি মিশিয়ে গুছিয়ে নিয়েছে। 
মেয়েটি সুখী, পরিতৃপ্ত। 
সুখ বুঝি প্রাপ্তির পেয়ালা বেয়ে উপচিয়ে পড়ছে। 
তাদের ছোট্ট ঘরের জানালা পথে যখন চাঁদের আলো বিছানায় লুটিয়ে পড়ে। 
মায়াবী জোছনার নীল জলে তারা স্নান করে। 
তখন তারা এক স্বপ্নীল ভুবনের বাসিন্দা হয়। 
যেখানে কোন দুঃখ নেই, কষ্ট নেই, না পাওয়ার যন্ত্রণা নেই। 
হাসি, গল্প - গানে রাত কখন ভোর হয়ে আসে। 
তা বুঝি ওরা জানতেই পারেনা। 
ছোট্ট এই জীবন। 
এক জীবনে মানুষের আর কি চাওয়ার থাকে? 
মেয়ে টা স্বপ্ন দেখে। 
স্বামীকে বলে, চলোনা গো আমরা কক্সবাজার ঘুরে আসি। 
আমি যে কল্পনার তুলিতে ছবি আঁকছি। 
আমরা সমুদ্র সৈকতে দাঁড়িয়ে আছি। 
সাগর বিক্ষুব্ধ উত্তাল তরঙ্গ বেলাভূমিতে এসে সশব্দে আছড়ে পড়ছে। 
আবার ছোট্ট শিশুর খিলখিল হাসিতে দুরে সরে যাচ্ছে। 
সাগরের জোয়ারে ভেসে - ডুবে, ডুবে ভেসে আমরা স্নান করব। 
ঢেউযে ঢেউয়ে আমি ভেসে যাব। 
তুমি টেনে তুলবে। 
দু' জন দু' জনকে জড়িয়ে ধরে ঢেউয়ে ঢেউয়ে ভেসে যাব। 
সৈকতে দাঁড়িয়ে আমরা সুর্যাস্ত দেখব। 
দেখব,কেমন করে দিনান্তে ক্লান্ত দিবাকর লাল বেনারশিতে নিজেকে সাজিয়ে ডুবে যায় ম্লান বেদনায় সাগরের অতল কালো বুকে। 
আমি বালিয়াড়িতে ঝিনুক কুড়াব। 
এ্যাই! 
সোহাগী বউ স্বামীর চিবুক ধরে আবার বলে, ধরো, এই ভাবে ঝিনুক কুড়োতে কুড়োতে যদি কোন একটায় মুক্তো পেয়ে যাই! 
সম্ভাবনাটা কল্পনা করে আনন্দে হাততালি দিয়ে বলে, হাউ ফানি! 
কি দারুন মজাইনা তাহলে হবেগো! 
স্বামীটি মুগ্ধ বিস্ময়ে বউয়ের স্বপ্নাতুর মুখের দিকে তাকিয়ে থাকে। 
গভীর মমতায় বউকে বুকে টেনে নেয়। 
তার টোপা টোপা দুগালে চুমো খায়।

চলবে

এই সংবাদটি 40 বার পঠিত হয়েছে




এই পাতার সর্বাধিক পঠিত খবরসমূহ

না সি মা খা ন

স্ব প ন চ ক্র ব র্ত্তী

স্ব প ন চ ক্র ব র্ত্তী

স্ব প ন চ ক্র ব র্তী

স্ব প ন চ ক্র ব র্তী

সকল মন্তব্য

মন্তব্য দিতে চান তাহলে Login করুন, সদস্য না হলে Registration করুন।

সকালের আলো

Sokaler Alo

সম্পাদক ও প্রকাশক : এস এম আজাদ হোসেন

নির্বাহী সম্পাদক : সৈয়দা আফসানা আশা

সকালের আলো মিডিয়া ও কমিউনিকেশন্স কর্তৃক

৮/৪-এ, তোপখানা রোড, সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত

মোবাইলঃ ০১৫৫২৫৪১২৮৮ । ০১৭১৬৪৯৩০৮৯ ইমেইলঃ newssokaleralo@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Developed by IT-SokalerAlo     hit counters Flag Counter