Friday, February 22, 2019
Login
Username
Password
  সদস্য না হলে... Registration করুন
চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে পুড়ে যাওয়া ভবন হাজী ওয়াহেদ ম্যানশনে কোনো অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা ছিল না                 চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা হাসপাতালে রয়েছেন তাদের চিকিৎসায় কোনো ত্রুটি হবে না                  ৪৬টি মরদেহ শনাক্ত করেছে স্বজনরা এগুলোর মধ্যে ৪৩টি মরদেহ স্বজনদের কাছে বুঝিয়ে দিয়েছে ঢাকা জেলা প্রশাসন                 ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা                  আজ অমর একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস                 চকবাজারের চুড়িহাট্টায় একটি ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড,৫৫টি মরদেহ উদ্ধার                  মর্যাদার সাথে দেশের ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতিকে সুরক্ষা এবং চর্চার আহবান প্রধানমন্ত্রীর                  মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা -২০১৯ উদযাপনে প্রস্তুত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার                 বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে দেশের ২১ জন বিশিষ্ট নাগরিক একুশে পদক-২০১৯ পেয়েছেন                 আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগরীর নিরাপত্তায় ১৬ হাজার পুলিশ থাকবে                 বাংলাদেশে সংযুক্ত আরব আমিরাতের ২টি প্রধান ব্যবসায়ী গ্রুপ বিনিয়োগে আগ্রহী                 

মূল সংবাদ


আজ স্বৈরাচার পতন দিবস ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস
সকালের আলো প্রতিবেদক :
সময় : 2018-12-06 09:16:19

ডিসেম্বর আজ, স্বৈরাচার পতন দিবস গণতন্ত্র মুক্তি দিবস ১৯৯০ সালের এই দিনে ছাত্র-জনতার উত্তাল গণ-আন্দোলনের মুখে পদত্যাগে বাধ্য হন স্বৈরশাসক এইচ এম এরশাদ এরশাদের পতনের মধ্য দিয়ে মুক্তি পায় গণতন্ত্র ১৯৮২ সালে এইচ এম এরশাদ রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেন
১৯৮৩ সালের মধ্য ফেব্রুয়ারি থেকেই ছাত্রসমাজ শুরু করে এরশাদ বিরোধী আন্দোলন। দীর্ঘ আট বছর ধরে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন চলতে থাকে রাজপথে। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আট দলীয়, বিএনপির নেতৃত্বে সাত দলীয় এবং বাম দলগুলোর পাঁচ দলীয় জোট সম্মিলিতভাবে ১৯৯০ সালে এরশাদ সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তোলে।
আন্দোলন করতে গিয়ে প্রাণ হারান নূর হোসেন, সেলিম, দেলোয়ার, ডা. মিলনসহ নাম না জানা অনেক অকুতোভয় মানুষ।

আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতৃত্বোধীন জোটের টানা কর্মসূচির কারণে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন এরশাদ। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দিবসটি পালন করে ‘গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’ হিসেবে। বিএনপি পালন করে ‘স্বৈরাচার পতন ও গণতন্ত্র মুক্তি দিবস’ হিসেবে। আর এরশাদের দল জাতীয় পার্টি (জাপা) দিবসটি পালন করে ‘সংবিধান সংরক্ষণ দিবস’ হিসেবে।

জাপার নবনিযুক্ত মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা এক বিবৃতিতে আজ ‘সংবিধান সংরক্ষণ দিবস’ পালনের জন্য দলের জেলা ও উপজেলাসহ সর্বস্তরের কমিটিকে অনুরোধ করেছেন।
দিবসটি উপলক্ষে এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণতন্ত্রের ভিত্তিকে আরো শক্তিশালী করে দেশের উন্নয়ন ও জনগণের কল্যাণে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহবান জানিয়েছেন।

গণতন্ত্রের অতন্দ্র প্রহরী সংগ্রামী দেশবাসীকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নব্বই পরবর্তী দুই দশকে আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার রক্ষায় দায়িত্বশীল ভূমিকা রেখেছে। সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে অবৈধ ক্ষমতা দখলের পথ রুদ্ধ হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোনো ষড়যন্ত্রই আমাদের সত্য ও ন্যায় এবং মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার পথ থেকে বিচ্যুত করতে পারবে না।

দিনটি সামনে রেখে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর পৃথক বাণীতে বলেছে, শত শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত গণতন্ত্র এখনো শঙ্কামুক্ত নয়।

দিবসটি উপলক্ষে বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল পৃথক কর্মসূচি পালন করবে।

সকল মন্তব্য

মন্তব্য দিতে চান তাহলে Login করুন, সদস্য না হলে Registration করুন।

সকালের আলো

Sokaler Alo

সম্পাদক ও প্রকাশক : এস এম আজাদ হোসেন

নির্বাহী সম্পাদক : সৈয়দা আফসানা আশা

সকালের আলো মিডিয়া ও কমিউনিকেশন্স কর্তৃক

৮/৪-এ, তোপখানা রোড, সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত

মোবাইলঃ ০১৫৫২৫৪১২৮৮ । ০১৭১৬৪৯৩০৮৯ ইমেইলঃ newssokaleralo@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Developed by IT-SokalerAlo     hit counters Flag Counter