Thursday, August 22, 2019
Login
Username
Password
  সদস্য না হলে... Registration করুন
ভারতের উত্তরাখণ্ড রাজ্যে ত্রাণবাহী একটি হেলিকপ্টার ভেঙে পড়েছে,নিহত ৩                 নিত্যপ্রয়োজনীয় অন্যান্য জিনিসের পাশাপাশি খাবার ও ওষুধের সংকট চরম আকার ধারণ করেছে কাশ্মীরে                 ইয়েমেনের আকাশ প্রতিরক্ষা বিভাগ যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন ভূপাতিত করেছে                  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কাশ্মীর নিয়ে আবারো মধ্যস্থতা করার আহ্বান জানিয়েছে                 মুম্বাইয়ে লতা মঙ্গেশকরের বাড়িতে গিয়ে তার খোঁজখবর নিলেন ভারতের রাষ্ট্রপতি                 বিশ্বের কুখ্যাত ১০ সন্ত্রাসী লিখে সার্চ দিলেই ভেসে আসছে মোদির ছবি                

বিশ্ব সংবাদ


দশম শ্রেনীর ছাত্রীকে ১২লাখে কিনে বিয়ে !
সকালের আলো ডেস্ক :
সময় : 2014-11-01 13:59:19

(প্রতীকী ছবি)  

ভারতের তামিলনাড়ুর কাড্ডালারে ১২ লাখ টাকা দিয়ে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে কিনে তারপর বিয়ে করলেন এক রাজনৈতিক নেতার ছেলে।১২ লাখ টাকা দিয়ে কিনে নেওয়ার পর, দুই পরিবারের সামনেই দুই সন্তানের বাবা বিপত্নীক বাবুর সঙ্গে মেয়েটির বিয়ে হয়৷ দুই পক্ষের আর্থিক ব্যবস্থাপনায় সবটাই উতরে গিয়েছিল, কিন্তু হঠাৎ নিজের মেয়েকে ফেরত চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন মেয়েটির মা অখিলা।   অখিলা (আসল নাম নয়) মাদ্রাজ হাইকোর্টে হেবিয়াস করপাস মামলা করে মেয়েকে আদালতে তোলার আবেদন করেছেন। পেশায় আইনজীবী অখিলার বক্তব্য, মামলা মোকদ্দমার কারণে স্থানীয় এক রাজনৈতিক নেতার ছেলে বাবু তাদের বাড়িতে আসতেন। সেখানে তাদের মেয়েকে দেখে। তারপর বাবু তার ও তার স্বামী আদেশের ওপর চাপ সৃষ্টি করে মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার জন্য। অখিলার অভিযোগ, আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে বাবু তাদের ওপর চাপ সৃষ্টি করে। মেয়েকে তার সঙ্গে বিয়ে দিলে ১২ লাখ টাকার সম্পত্তি দেওয়ার কথাও বলেন।     একপ্রকার চাপে পড়েই তারা প্রাথমিকভাবে বাবুর শর্ত মেনে নেন বলে দাবি করেছেন অখিলা। অন্যদিকে, অখিলা ও আদেশের মেয়ে জানিয়েছে, তার বাবা-মা টাকার লোভে এই বিয়ে দিতে রাজি হয়েছেন।   বিয়ের পর অখিলা ও আদেশ জানতে পেরেছিলেন বাবুর আগের পক্ষের স্ত্রীর দুই সন্তান আছে। তারপরই আচমকা আদালতের দ্বারস্থ হন অখিলা।   কাড্ডালার জেলার সমাজকল্যাণ দফতরের এক কর্মকর্তা জানান, অভিযোগ পেয়ে তিনি ছেলেটির বাড়িতে তদন্তে গিয়েছিলেন। কিন্তু মেয়েটির ওপর কোনো নির্যাতন হয়েছে বা তিনি খারাপ রয়েছেন এমন প্রমাণ পাননি। তা ছাড়া, সে নাবালিকা, তার প্রমাণও পাননি তিনি। তবে পরবর্তীকালে মেয়েটির মা বার্থ সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার পর পুলিশের সাহায্যে তাকে উদ্ধার করে আনা হয়। শিগগিরই তাকে জেলা শিশুকল্যাণ দফতরে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সকল মন্তব্য

মন্তব্য দিতে চান তাহলে Login করুন, সদস্য না হলে Registration করুন।

সকালের আলো

Sokaler Alo

সম্পাদক ও প্রকাশক : এস এম আজাদ হোসেন

নির্বাহী সম্পাদক : সৈয়দা আফসানা আশা

সকালের আলো মিডিয়া ও কমিউনিকেশন্স কর্তৃক

৮/৪-এ, তোপখানা রোড, সেগুনবাগিচা, ঢাকা-১০০০ হতে প্রকাশিত

মোবাইলঃ ০১৫৫২৫৪১২৮৮ । ০১৭১৬৪৯৩০৮৯ ইমেইলঃ newssokaleralo@gmail.com

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য অধিদপ্তরে নিবন্ধনের জন্য আবেদিত

Developed by IT-SokalerAlo     hit counters Flag Counter